খানা খাওয়ার সময় সালাম দেয়া এবং কথা বলা নিষিদ্ধ মনে করা

68

আমাদের সমাজে একটা কথা বেশ প্রচলন আছে, তাহলো কেউ যখন খানা খাবে, তখন কোন প্রকার সালাম দেয়া ঠিক নয়আসলে কোন কথার উপর ভিত্তি করে এই তথ্য বর্ণনা করা হয়, তার কোন ভিত্তি নেই। খানা খাওয়ার সময় সালাম দেয়া যাবে না, এই ধরনের কোন ধর্মীয় ডকুমেন্ট ইসলামে নেই। ধর্মীয় বিধানানুসারে মসজিদে প্রবেশের সময় যেখানে পড়তে হয় দোয়া, সেক্ষেত্রে আমরা দেই সালাম। অথচ মসজিদের ভিতরে যারা থাকেন, তারা সবাই শান্তিতেই থাকেন। কাজেই সেখানে তাঁর শান্তির জন্য দোয়া না করে বরং নিজের জন্য দোয়া করতেই আল্লহর হাবিব শিক্ষা দিয়েছেন। কিন্তু আমরা মসজিদের ভিতরে বসতে যেয়ে বা বাহির হওয়ার সময়ও অনেক ক্ষেত্রে মসজেদে প্রবেশ ও বাহিরের দোয়া না করে বরং এই কে অপরকে সালাম দিয়ে থাকি। আর এই কাজগুলো সংঘটিত হয় আমাদের ধর্মীয় জ্ঞান একেবারেই কম থাকার কারণে। মোটকথা হল যেখানে সালামে দেয়া উচিৎ নয়, সেখানে আমরা সালাম দেই। আর যেখানে সালাম দেয়াতে কোন দোষের কিছু নেই, সেক্ষেত্রে সালাম না দেয়ার জন্য পথ খুঁজি।

যাহোক খানা খাওয়ার সময় সালাম দেয়া এবং জবাব দেয়াতে মোটেও দোষের কিছু নেই। তবে কোন ব্যক্তি যদি খাদ্য চর্বণ-রত অবস্থায় থাকে, অর্থাৎ মুখের ভিতরে খাদ্য ভর্তি থাকে, তাহলে কোন অবস্থায়ই জবাব দেয়া যাবে না বা কোন কথাই বলা উচিৎ নয়। তবে যদি খাদ্য গিলে ফেলার পর মুখ খালি থাকে, তাহলে জবাব দেয়াতে বা কথা বলাতে মোটেও দোষের কিছু নেই। এখানে কথা বলার মূল সমস্যাটি ধর্মীয় নয়, বরং সমস্যাটি হল সাইনটিক্যাল অর্থাৎ এই ক্ষেত্রে জবাব দিলে হয়ত খাদ্য গলায় আটকিয়ে যেতে পারে। ইহুদি বা খৃষ্টানদের ধর্ম মতে তাদের মধ্যে খানা খাওয়ার সময় কথা বলা একেবারেই নিষিদ্ধ। কাজেই মুসলমানদের জন্য মুখ বন্ধ করে নীরবে খানা খাওয়া উচিৎ মনে করাটাও ঠিক নয়। কারণ: রসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম কর্তৃক খানা খাওয়ার সময় কথা বলা হাদিসে প্রমাণিত আছে। তবে অযথা বেশি কথা বলা বা গল্প করা মোটেও ঠিক নয়। কারণ: খানা যেহেতু বিসমিল্লাহ বলে শুরু করতে হয়, তাই মুসলমানদের জন্য খানা খাওয়াটাও একটা বৃহত্তম ইবাদত। কাজেই ইবাদতের সময় কি ধরনের আচরণ ও কার্যক্রম করতে হয়, তা প্রত্যেক মুসলমানেরই জানা থাকা উচিত। সেক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কথা বলাতে মোটেও দোষের কিছু নেই, বরং সালাম না দেয়াটাই অনুচিত। যদিও উত্তম বিষয়টি মহান আল্লহ রব্বুল আলামীনই ভাল জানেন, তারপরও এ বিষয়ে আরও অধিক জানার জন্য ইন্টারনেট মাধ্যমে নীচের ওয়েব সাইট ভিজিট করুন:

http://islamqa.com/en/ref/150591/Rulingoneating

http://islamqa.com/en/ref/142516

 

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *