সভা খাওয়া এবং যিয়ারত খাওয়া

পূর্বে শুনেছি মানুষ সভা শুনতে যায়, কিন্তু এখন দেখি মানুষ সভা খেতে যায়। বাংলাদেশের সব যায়গায়ই কম-বেশি সভা হয়, কিন্তু বগুড়া এই লাকার মত এত অধিক সভা আর কোথাও হয় না। বগুড়া জেলা নর্থ বেঙ্গল তথা দেশের বক্তা আলেমদের জন্য একটা শীতকালীন বিচরণ ভূমি। প্রথানুসারে যে গ্রাম অথবা পাড়ায় সভা হয়, তার আশে-পাশের পাঁচ-ছয় বর্গ কিলোমিটারের মধ্য সকল আত্মীয় স্বজনকে সভায় দাওয়াত দিতে সে এলাকার লোক বাধ্য। সভাকে উপলক্ষ করে একটা বিশাল আয়োজনের ধুম পরে যায়। যথা সময়ে সকল মেহমান এই সে বাড়ি ভরে যায়। রাত্রে সভা শুরু হয়, আর সকল মেহমান গল্প-গুজব ও আড্ডায় মেতে উঠে। বেশির ভাগ সময়ই সভার মঞ্চ থেকে ডাকতে শোনা যায় যে, “যার যার যে মেহমান আছে, তাদেরকে নিয়ে সভা মঞ্চের সামনে হাজির হোন”।

যতগুলো মেহমান আসে, তার ২০% লোকও সভায় হাজির হয় না। কারণ: সকল সভার পাশেই একটি মেলা লাগানো থাকে, যেখানে সকল ধরনের খাদ্য সামগ্রী থেকে শুরু করে কসমেটিক এবং মেয়েলী আইটেমের এমন কোন জিনিস নেই, যা পাওয়া যায় না। তাই যারাই সভার উদ্দেশ্যে বের হয়, তাদেরকে নিয়ে শয়তান প্রথমে প্রবেশ করায় সে মেলায়। সেখানে বিভিন্ন কেনা কাটা করে সে সামগ্রী আবার বাড়িতে পৌছিয়ে খুব কম লোকই পুনরায় সভায় ফিরতে পারে। আমি জিজ্ঞাসা করে জানতে পেরেছি যে, সে সকল মেলায় পুরুষ-মহিলার পছন্দ অনুসারে কেনা-কাটার মজাই না-কি আলাদা। যাহোক যেহেতু জালসাটা ধর্মীয়, তাই এই সুযোগে ছেলে-মেয়েদের দেখা সাক্ষাতের একটা ব্যবস্থাও ধর্মের ছায়া তলেই কৌশলগত ভাবে হয়ে যায়। সব থেকে বড় লক্ষণীয় ব্যাপার হল, ঐ সভায় যে বক্তাকে আনা হয়, তিনি সবই দেখেন, জানেন এবং বুঝেন; কিন্তু আয় বন্ধ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনায় কেউই জোরালো ভাবে মেলা সংক্রান্ত ব্যাপারে কোন নিষেধ করেননা বা কঠোর নির্দেশ দেন না। অবস্য কেউ কেউ তাদেরকে সভাস্থলে আসার জন্য আহ্বানও করেন।

আমার কথা হল, যে সভার বক্তা সভা মঞ্চের সাথেই অবস্থিত সম্পূর্ণ হারাম নারী-পুরুষের মিলন মেলাই বাদ দেওয়াতে পারেন না, সে বক্তার দ্বারা ধর্মের কি উন্নতি সাধন হবে?  তাদের কাজ শুধু টাকা উপার্জন করা; ধর্মীয় বিধানে মানুষকে পাকা-পোক্ত করানো নয়। তারা এক বছর বক্তৃতা করে যান এবং পরবর্তী বৎসরের জন্য ভিজিটিং কার্ড দিয়ে যান। তারা কেউ কি কখনো বলেছেন যে, “যদি এর পর থেকে এই হারাম মেলা বাদ দিতে না পারেন, তাহলে আর আমাকে ডাকবেন না, আর ডাকলেও আমি আসব না”?  অবশ্যই না, কারণ: একথা বললে যদি আবার ব্যবসা বন্ধ হয়ে যায়! কাজেই আমি সবাইকে অনূরোধ করব যে, সভা কখনোই খাওয়ার জিনিস নয়, বরং সভা হল শুনার বিষয়। সভা শুনে নিজের ইমানকে নতুন গতিতে তাজা করার বিষয়। হাদিসের তথ্যানুসারে জানা যায়, ‘রসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন মেরাজে গিয়ে দেখেছিলেন যে, কিছু মানুষের চোয়াল কাঁচি দিয়ে চেড়া হচ্ছে। তখন তিনি জিব্রাইল (আঃ) কে প্রশ্ন করলে জিব্রাইল (আঃ) উত্তর দিয়েছিলেন যে, “এরা হলো আপনার উম্মতের সেই সকল বক্তা ও খতিব, যারা নিজেরা যা অপরকে বলে, কিন্তু সেই অনুসারে নিজেরা আমল করে না”। কাজেই বর্তমান সময়ের বক্তাদের নিজস্ব পারিবারিক তথ্য একটু খোঁজ নিয়ে দেখেন, তাহলেই সবকিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে। সুতরাং ধর্মীয় সভার নামে বর্তমান পদ্ধতির ৯৫% মিলন মেলা বা খাওয়া-দাওয়ার সভা সম্পূর্ণরূপে অবৈধ। ধর্মীয় নিয়ম রিতি-নীতি সঠিক না হওয়াতে এধরনের সভায় শুধুমাত্র অর্থ উপার্জন, খাওয়া-দাওয়া এবং দেখা-সাক্ষাৎই সম্বব। এতে মোটেও ইমানের কোন উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

আরবি ভাষার যিয়ারতের ভাবার্থ হল হাজিরা, উপস্থিতি বা পরিদর্শন ইংরেজিতে বলে Vigit. সে হিসাবে ইসলামে যিয়ারত শব্দটি এই সেছে কবরের বেলায়। অর্থাৎ কবর যিয়ারত। অধুনা আমাদের দেশের অনেক এলাকায় এই যিয়ারত শব্দটি ব্যবহার হচ্ছে বৎসরের ফজিলত-পূর্ণ দিন সমূহের আমল বাদ দিয়ে বিদ্‌য়াত পন্থি মিলাদ পড়ে সবার শেষে নিজেদের মধ্যে চাঁদা তুলে কিছু খাদ্য সামগ্রী পাকিয়ে অবশেষে বণ্টন করে খাওয়াকে বলে যিয়ারত। সবথেকে ঘৃণার ব্যাপার হল, এখানেও সে মাওলানা খেতাব প্রাপ্ত হুজুর উপাধি ধারী ব্যক্তি-গন নির্দ্বিধায় এই সকল অনুষ্ঠান পালন করে যাচ্ছে। অবশ্য এতে তাদের একটু লাভও আছে, তাহলো চাঁদা না দিয়েও ঠিকই সে খাদ্য সামগ্রীর একটি ভাগ সে হুজুর পেয়ে থাকে। আর যদি মিলাদ পড়ায়, তাহলে মিলাদ শেষে মুসাফার নামে হাত বদল হয় সে মিলাদ দাতাদের কোন একজনের হাতের সাথে……..। বাকি বিষয়টা আপনারাই জানেন।

ধিক আলেম, ধিক তব কার্যবিধি, তুমি এত লোভী?                                                                 দিয়াছ বিসর্জন তব ধর্মীয় বিধান শুধু স্বার্থের লাগি!

মোট কথা হল ইসলামে কবর যিয়ারত একটি বিশিষ্ট আমল। সব সময় সম্ভব না হলেও বিশেষ বিশেষ দিন সমূহে কবরস্থানে যেয়ে নিজ পরিজনদের মধ্যে থেকে যারা মৃত্যু বরণ করেছেন, তাদেরকে স্মরণ করার নামকেই বলে কবর যিয়ারত। সেখানে যেয়ে কবরে মুর্দার সিনা বরাবর পশ্চিম পার্শে পূর্বদিকে মুখ করে দাঁড়িয়ে যতটুকু ধর্মীয় দোয়া -দরূদ জানা আছে, সে অনুসারে পড়ে অতঃপর কবরের উত্তর পার্শে মাথা বরাবর পশ্চিম দিকে মুখ করে দাঁড়িয়ে মৃতের রূহের মাগফেরাতের জন্য আল্লহর কাছে ফরিয়াদ জানানো উচিৎ। এখানে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি তাহলো, কোন ব্যক্তির সন্তান বা আওলাদ যদি তার জন্য দোয়া করে, তাতে যতটুকু ফল হবে, সে ক্ষেত্রে সারা বিশ্বের সকল ভাড়াটিয়া আলেম যদি একসাথে সে দোয়া করে, তাহলেও ততটুকু ফল হবে না। কারণ: মানুষ মরে যাওয়ার সাথে সাথে তার আমলের সবগুলো রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়। শুধু খোলা থাকে তিনটি রাস্তা। তার মধ্যে একটি হল তার আওলাদ বা নেক সন্তান। তাই আপনারা হুজুর ভাড়া করা বাদ দিয়ে বরং নিজে কবর যিয়ারত করতে শিখুন। সে সাথে বুঝতে শিখুন যে যিয়ারত কোন খাওয়ার বিষয় নয়, বরং তাহলো কবরস্থানে হাজিরার বিষয়। যদিও উত্তম বিষয়টি মহান আল্লহ রব্বুল আলামীনই ভাল জানেন, তারপরও এ বিষয়ে আরও অধিক জানার জন্য ইন্টারনেট মাধ্যমে নীচের ওয়েব সাইট ভিজিট করুন:

http://www.islamqa.com/en/ref/10225/bid’ah

 

 

You may also like...

31 Responses

  1. Coconut Oil says:

    Everything is very open with a clear explanation of the challenges.

    It was definitely informative. Your site is very helpful.
    Many thanks for sharing!

  2. Sweet blog! I found it while surfing around on Yahoo News.
    Do you have any tips on how to get listed in Yahoo News?

    I’ve been trying for a while but I never seem to get there!
    Many thanks

  3. EsperBroow says:

    online non online

    86af online 20 mg in arabic

  4. EsperBroow says:

    us online online online

    86af achat online discret

  5. What’s up to all, how is the whole thing, I think every one is getting more from this website, and your views are pleasant designed for new visitors.

  6. AveniraBroow says:

    orden de compra online

    6a28 only now online china

  7. AveniraBroow says:

    online grapefruitsaft

    6a28 get online spain

  8. VianorBroow says:

    online soft tablets online

    85d3 online ohne rezept 2010

  9. VianorBroow says:

    maximum dosage for online

    85d3 online uso frequente

  10. naturally like your web site but you have to check
    the spelling on quite a few of your posts. A number of them are rife with spelling issues
    and I find it very bothersome to inform the reality then again I’ll definitely come again again.

  11. KamaBroow says:

    i recommend levitra vs online

    57c8 how to use to online

  12. KamaBroow says:

    online talk forum

    57c8 pfizer sell online online

  13. You have observed very interesting details! ps decent internet site. 🙂

  14. Howdy would you mind letting me know which hosting
    company you’re working with? I’ve loaded your blog in 3 different internet browsers and I must
    say this blog loads a lot quicker then most. Can you suggest a good hosting provider at a honest price?

    Many thanks, I appreciate it!

  15. kosten online 5mg

    d6e8 online in der schwangerschaft

  16. gunstig online generika kaufen

    d6e8 online online 5mg online online

  17. minecraft says:

    I’ll right away take hold of your rss as I can not in finding your email subscription link
    or e-newsletter service. Do you’ve any? Please permit me
    recognize so that I may just subscribe. Thanks.

  18. minecraft says:

    Great beat ! I wish to apprentice whilst you
    amend your website, how can i subscribe for a blog web site?
    The account aided me a acceptable deal. I had been tiny bit familiar of this your broadcast provided vibrant
    clear idea

  19. minecraft says:

    Hey! I just wanted to ask if you ever have any problems with hackers?
    My last blog (wordpress) was hacked and I ended up
    losing a few months of hard work due to no backup.
    Do you have any solutions to protect against hackers?

  20. minecraft says:

    Write more, thats all I have to say. Literally, it seems as though you relied on the video to
    make your point. You definitely know what youre talking about, why throw away your intelligence on just
    posting videos to your blog when you could be giving us something informative to read?

  21. minecraft says:

    Hi, after reading this amazing post i am also happy to share my familiarity
    here with colleagues.

  22. minecraft says:

    Hello to every body, it’s my first go to see of this weblog; this web site
    carries remarkable and genuinely excellent information in favor
    of visitors.

  23. It is in reality a great and useful piece of info. Thanks for sharing. 🙂

  24. Like says:

    Like!! Thank you for publishing this awesome article.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *